NARAYANGANJ.TV

নারায়ণগঞ্জের প্রথম অনলাইন টিভি

যে ব্যাংকে ডিফল্টার তার এত টাকা আসলো কোত্থেকে -আইসিইউ ইউনিটের উদ্বোধনকালে সেলিম ওসমান আবারো বেদখল হয়ে যাচ্ছে হাজীগঞ্জ কেল্লার চারপাশ রেলের বন্ধ করা কালভার্ট খুলে দিলো সিটি কর্পোরেশন ও ইউনিয়ন পরিষদ// গাবতলী, ইসদাইরের জলাবদ্ধতা নিরসন করোনা পরিস্থিতিতে নারী ও শিশুদের মুটিয়ে যাওয়া রোধে কি করবেন ? তিনশ শয্যা হাসপাতালে যেতে পারেন করোনা টেষ্টের জন্য ডিএনডি’র আবদ্ধ পানি কমেনি // শুক্রবার রাত থেকেই পানি নিস্কাশনের কাজ শুরু : শামীম ওসমান এখনো কেনো ডিএনডি’র জলাবদ্ধতা ? শোনা যাক তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর মুখ থেকে এখনো কেনো ডিএনডি’র জলাবদ্ধতা ? শোনা যাক তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর মুখ থেকে বৃষ্টিতে ডিএনডির ভিতরে ব্যাপক জলাবদ্ধতা, এলাকাবাসীর চরম দূর্ভোগ। নারায়ণগঞ্জে আবার লকডাউন এর তথ্যটি গুজব। জামতলা, আমলাপাড়া, আর রূপায়নে লকডাউন প্রত্যহার। অস্বাভাবিক বিদ্যুৎ বিল//জনমনে ক্ষোভ//সরকারের বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ সংশ্লিষ্টদের ষড়যন্ত্র ? এবার করোনা রোগি ও মৃতদেহ বহনে মডেল গ্রুপের ফ্রী এ্যাম্বুলেন্স মাঠ কাপানো ফুটবলার সালাহ উদ্দিনের ইন্তেকাল//জানাজায় মানুষের ঢল করোনার দূর্যোগে নারায়ণগঞ্জে পালিত হলো ব্যাতিক্রমী ঈদ কুয়েতে বাড়ির ছাঁদে ঈদের নামাজ আদায় করলেন নারায়ণগঞ্জের প্রবাসীরা পশ্চিম মাসদাইর যুব উন্নয়ন কমিটির উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরন দু’-একজন পুলিশ সদস্যের জন্য বাহিনীর বদনাম হচ্ছে–আবু হাসনাত শহীদ বাদল নারায়ণগঞ্জে নবীজি হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) এর দাড়ি মোবারক প্রদর্শন কুয়েতে লকডাউনে নারায়ণগঞ্জের অনেক শ্রমিক প্রবাসী দেলোয়ার মোল্লার কষ্টার্জিত টাকায় ঈদ উপহার পেলো সাড়ে তিনশ মানুষ

ডিএনডি ও ডিএনডির বাইরের জলাবদ্ধতা নিরসন এবং হাজীগঞ্জ দূর্গ রক্ষায় যা বলছেন মেয়র আইভি

নারায়ণগঞ্জ টিভিঃ নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডাঃ সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে প্রচুর ড্রেন নির্মাণ করা হয়েছে। সিটি কর্পোরেশন এলাকায় কোনো জলাবদ্ধতা নেই। বৃষ্টি হলে পানি জমলেও তিন ঘন্টা সময় পেলেই পানি নেমে যায়। সিটি কর্পোরেশন এখন খালগুলি সংস্কারের কাজ করছে। ডিএনডি'র যে অংশ সিটি কর্পোরেশন এলাকায় পড়েছে সেখানেও সিটি কর্পোরেশন প্রচুর ড্রেন নির্মাণ করেছে। ডিএনডি'র যে প্রজেক্ট পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতায় সেনাবাহিনাী কাজ করছে, তাদের প্রথম পর্যায়ের কাজের বাজেটে শুধু খাল খনন ধরা ছিলো। খালের দুই পারে েদেয়াল নির্মাণ বা অন্যান্য বিষয়গুলি ধরা ছিলো না। তিনি বলেন, সিদ্ধিরগঞ্জে ডিএনডি'র লেক বিউটিফিকেশনের যে কাজ চলছে তা শেষ হলে মানুষ বলবে সেটার মতো আমাদের এলাকার খালকেও করে দিন। বৃহস্পতিবার বিকেলে তিনি নগরীর খানপুর রেললাইন এলাকায় গঞ্জে আলী খালের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও খনন কাজ পরিদর্শনের সময় একথা বলেন।# রিপোর্টঃ শরীফ উদ্দিন সবুজ

বিক্রি করতে না পেরে মণকে মণ সব্জি গর্তে ফেলে দিচ্ছেন কৃষকরা

ভিডিও টি শেয়ার করুন

নারায়ণগঞ্জ টিভিঃ করোনার কারনে পণ্য শহরাঞ্চলে আনা কষ্টকর। আনলেও অনেক সময় উপযুক্ত দাম পাওয়া যাচ্ছেনা। বিক্রি হচ্ছেনা। তাই সব্জি ক্ষেতের পাশের গর্তে ফেলে গর্ত ভরাট করছেন কৃষকরা। এ পরিস্থিতি নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার শষ্য ভান্ডার খ্যাত আলীরটেক-বক্তাবলী ইউনিয়নের। সমস্যা সমাধানে প্রতিদিন অন্তত দুই ঘন্টার জন্য নারায়ণগঞ্জের সাথে বক্তাবলীর ফেরী সার্ভিস খুলে দেয়ার দাবী জানিয়েছেন তারা। আর জেলা প্রশাসক ত্রান দাতাদের আহ্বান জানিয়েছেন চাল,ডালের সাথে ত্রান হিসেবে সব্জিও দিতে।
নগরীর আল্লামা ইকবাল রোডে কথা হচ্ছিলো সব্জি বিক্রেতা নূরে আলমের সাথে। এমনিতে তিনি গার্মেন্টস শ্রমিক। করোনার কারনে গার্মেন্ট বন্ধ থাকায় তিনি সব্জি বিক্রিতে নেমেছেন। দেশী বেগুন বিক্রি করছিলেন ষাট টাকায়, টমেটো, উস্তা, কাঁচামরিচসহ অন্যান্য সব্জি বিক্রি করছিলেন চল্লিশ থেকে পঞ্চাশ টাকায়। সব্জির দাম বেশি হওয়ার কারন হিসেবে তিনি বললেন, শহরে সব্জি আসছে কম। কম সব্জি আসায় ভোরবেলা নগরীর একমাত্র পাইকারি বাজার দ্বিগুবাবুর বাজারে গিয়ে সব্জি কিনতে হয়। তবে এটাও ঠিক এত কষ্ট করে সংগ্রহ করা সব্জি প্রতিদিন সব বিক্রি হয়না।
নারায়ণগঞ্জে এই অবস্থা দেখে রওনা হলাম নারায়ণগঞ্জের নদী বেষ্টিত চরাঞ্চল বক্তাবলীতে-আলীরটেকে। বক্তাবলীর ইউনিয়নের কানাইনগরে বসে এ এলাকার সবচেয়ে বড় সব্জির মোকাম। অন্যদিন মোকাম বেলা দশটা পর্যন্ত চললেও এখন সকাল আটটার মধ্যে শেষ হয়ে যায়। কৃষকরা দাম পায়না। পরিবহনে অসুবিধা। তাই মোকামে সব্জি আনা কৃষকের সংখ্যা কমে গেছে।
মোকামের একটু পর থেকেই শুরু একরের পর একর সব্জির ক্ষেত। বেগুন, টমেটো, ভূট্টা, পোটল, ডাটাসহ নানা সব্জি। ক্ষেতে পড়ে আছে। কোনোটা পেঁকে পঁচে যাচ্ছে। কোনোটা পঁচে মিশে গেছে। তরুন কৃষক আসাদুল্লাহদের ক্ষেতের পাশেই একটা গর্তে প্রচুর বেগুন পড়ে উঁচু হয়ে আছে। আসাদুল্লাহ বেগুন সড়িয়ে দেখালো বেগুনের স্তুপের নিচে আছে টমেটো, উস্তা। ব্যাপার কি ? বললো,‘লকডাউনের শুরুতে বক্তাবলী-আলীরটেকের সাথে নারায়ণগঞ্জ শহরের যোগাযোগ একেবারে বিচ্ছিন্ন করে দেয় প্রশাসন। তখন পঁচতে থাকে বিভিন্ন ধরনের সব্জি। মনকে মন টমেটো, উস্তা, বেগুন মাঠের পাশের গর্তে ফেলে দেন আসাদুল্লা ও তার পরিবার।’
বক্তাবলীতে যতক্ষন হাঁটলাম ততক্ষনই প্রতিটা জমির পাশে দেখলাম এমনি গর্ত। সবাই যার যার সব্জি ফেলে জমির পাশের গর্ত ভরাট করছেন। আরেক কৃষক আব্দুল আলি বললেন, যে বেগুন ঢাকা-নারায়ণগঞ্জে মহল্লায় মহল্লায় বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৬০ টাকায় সে বেগুন আমরা বিক্রি করছি ৫ থেকে ৭ টাকায়। তা-ও ক্রেতা পাওয়া যাচ্ছেনা। আগে প্রতিদিন তিনশ- সাড়ে তিনশ বেপারী নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকা থেকে বক্তাবলী আসতো সব্জি কিনতে। ফেরী বন্ধ থাকায় ও চাহিদা কম থাকায় এখন পনের-বিশজন বেপারী আসছেন সব্জি কিনতে। তিনি বলেন, চার লাখ টাকা খরচ করে সব্জির আবাদ করেছিলাম। ধরেছিলাম খরচ উঠে পঞ্চাশ হাজার টাকা লাভ থাকবে। চার লাখ টাকার মধ্যে মাত্র পয়তাল্লিশ হাজার টাকা উঠেছে। বাকি টাকা উঠেনি। তিনি বক্তাবলীর ফেরি সার্ভিস সকাল ছয়টা থেকে দুই ঘন্টার জন্য হলেও চালু করার দাবী জানিয়ে বলেন, বেপারীরা আসতে পারলে হয়তো সব্জি আবাদের চালানটা উঠবে। তাহলে পরের আবাদে সব্জির বীজ, সার, কীটনাশক কিনতে বা শ্রমিক খাটাতে কারো কাছে হাত পাততে হবেনা। কিন্তু তা না হলে আমাদের এনজিও বা কারো কাছ থেকে সুদে ঋন নিতে হবে। দেনার দায়ে পড়তে হবে।’ সমস্বরে তার কথাকে সমর্থন করলেন পাশে দাড়ানো কৃষক আসলাম, হোসেন আলি, নুরু মিয়া, সুলতানসহ অন্যরা।
শীতলক্ষা নদী পার হয়ে বক্তাবলী। বক্তাবলীর পরে আবার ধলেশ্বরী। ধলেশ্বরীর ওপারে মুন্সিগঞ্জের বালুরচর ইউনিয়নের চর বয়রাগাদী। মুন্সিগঞ্জ থেকে এক মন পুঁইশাক নিয়ে বক্তাবলী হয়ে নারায়ণগঞ্জ শহরে যাচ্ছিলেন হাজী আহম্মদ আলী। বললেন, সরকারের ত্রান চাইনা। ত্রান দিলে আর কয় কেজি দিবে। পাঁচ কেজি, দশ কেজি না হয় বিশ কেজি-ই। কিন্তু যদি ফসল বিক্রি করতে পারি তাহলে ত্রান, ঋনের দরকারের নেই। সরকারের উচিৎ আমাদের প্রয়োজন দেখা।
বক্তাবলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শওকত আলী কৃষকদের দাবীকে সমর্থন করে বললেন, আমার ইউনিয়নের বলতে গেলে প্রায় সবাই কৃষক। পণ্য শহরে নিতে না পারায় তারা খুব সমস্যায় আছে। আগে ট্রলারও বন্ধ ছিলো। আমি উদ্যোগ নিয়ে সীমিত আকারে ট্রলার চালু করেছি। কিন্তু ট্রলারে মাল একবার উঠাতে একবার নামাতে খরচ বেশি পড়ে যায়। এছাড়া ভ্যানগাড়ি না আসলে গেলে মাল পরিবহনে অসুবিধা। প্রশাসন যদি ফেরীটা দুই ঘন্টার জন্য অন্তত খুলে দিতো আমার এলাকার মানুষের জন্য অনেক উপকার হতো।
যোগাযোগ করা হলে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক জসিম উদ্দিন বলেন, ফেরী খুলে দেয়ার বিষয়টি সংশ্লিষ্টদের সাথে আলোচনা করে আমি উদ্যোগ নিবো। তিনি বলেন, যারা ত্রান দিচ্ছেন আমি তাদের অনুরোধ করবো চাল-ডালের সাথে সব্জিও দিন। তাহলে কৃষকরা বাঁচবে।#
শরীফ উদ্দিন সবুজ, নারায়ণগঞ্জ। ২৫-৪-২০২০।

Posted By Published On: মে ১১, ২০২০ Last Modified On:
This Post Was Filed Under: সর্বশেষ, জনদুর্ভোগ, সংগঠন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি, সোনারগাঁও, অর্থনীতি, জাতীয়, আরো ভিডিও Tags:
Featured Video Play Icon

যে ব্যাংকে ডিফল্টার তার এত...

নারায়ণগঞ্জ টিভি : প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার দীর্ঘ আড়াইমাস পর নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর এলাকায় ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট করোনা হাসপাতালে ১০ শয্যার কাঙ্খিত আইসিইউ ইউনিট (নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র) চালু হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে আনুষ্ঠানিকভাবে এর বিস্তারিত...

Featured Video Play Icon

কুয়েতে লকডাউনে নারায়ণগঞ্জের অনেক শ্রমিক

কুয়েতে লকডাউনে নারায়ণগঞ্জের অনেক শ্রমিক কুয়েতে কর্মরত রয়েছেন নারায়ণগঞ্জের পাগলার দেলপাড়া এলাকার বাসিন্দা সেলিম হাওলাদার। সেখানে লক ডাউনে থাকা নারায়ণগঞ্জের শ্রমিকদের অবস্থা নিয়ে তিনি নিজেই তৈরী করেছেন একটি প্রতিবেদন। বিস্তারিত...

Featured Video Play Icon

বাংলাদেশ ইয়ার্ণ মার্চেন্ট এসোসিয়েশন ঈদ...

নারায়ণগঞ্জ টিভিঃ ঈদ-উল-ফিতরকে সামনে রেখে করোনার কারনে দুরাবস্থায় পড়া মানুষের মধ্যে ঈদ সামগ্রী বিতরন করেছে বাংলাদেশ ইয়ার্ণ মার্চেন্ট এসোসিয়েশন। সোমবার সকালে নগরীর টানবাজারে অবস্থিত বাংলাদেশ ইয়ার্ণ এসোসিয়েশন কার্যালয়ের সামনে থেকে বিস্তারিত...

Featured Video Play Icon

হাইকোর্টের রায়ও মানছেনা ফতুল্লা পাইলট...

হাইকোর্টের রায় নিয়ে এসেও শিক্ষকের পদে যোগ দিতে পারছেন না ফতুল্লা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের গনিতের শিক্ষক মোহাম্মদ ইসমাইল হোসেন ভূইয়া। স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন ও ম্যানেজিং কমিটি বিস্তারিত...

Website Design & Developed By MD Fahim Haque - Web Solution